খোলা গল্প । লেখকের টাকা । রাজা সহিদুল আসলাম

0
109

৪১ লাইনের খোলা গল্প
লেখকের টাকা
রাজা সহিদুল আসলাম

: কেমন আছেন?
: ভাল। আপনি কবে এসেছেন?
: গতকাল।
: এবার বই মেলায় দেরিতে এলেন।
: হ্যাঁ ৪৪০ কিলোমিটার দূরে থাকি। বই মেলায় আসতে হলে অফিসের কাজ, সংসারের কাজ সব গুছিয়ে বসকে ম্যানেজ করে তবেই আসা। খরচও অনেক।
: কবে ফিরবেন?
: আগামিকাল। ঢাকায় থাকা মানেই টাকা খরচ। এবার বইয়ের দাম বেশি।
: কাগজের দাম বেড়েছে,ছাপা খরচ বেড়েছে,সব কিছু বেড়েই চলেছে।
: প্রভাব পড়েছে পাঠকের উপর। পাঠককে বেশি দাম দিয়ে বই কিনতে হচ্ছে। শুনলাম গত বছর প্রকাশকরা ফর্মা ২০ টাকা ধরেছিল, এ বছর ২৫ টাকা। প্রকাশকের করার কিছু নেই। জিনিস পত্রের দাম বাড়বে প্রকাশকও বইয়ের দাম বাড়িয়ে দেবে। এদিকে পাঠক শরীর চুলকাবে।
হা হা করে হেসে উঠলেন তিনি। প্রকাশনা জগতের ভবিষ্যৎ কী হবে বলা মুশকিল। বইয়ের দাম বাড়ছে, পাঠক বাড়ছেনা। বাংলাদেশের জনসংখ্যা ১৬ কোটি। বই বিক্রির হিসেব শয়ের ঘরে।
: তাহলেও বই মেলায় কোটি কোটি টাকার ব্যবসা হয়।
: তা হয় বটে।
: এবার আপনার নতুন বই এলো?
: না।
: গত বছর আপনার সম্পাদিত বইটা কিনলাম। সাড়ে চারশ টাকা। দামটা একটু বেশিই রেখেছেন।
: দাম নির্ধারণ করেন প্রকাশক।
: তবে বেশ ভাল বিক্রি হয়েছে আপনার বই। কেমন টাকা পেলেন?
: পাইনি। প্রকাশক বলছেন বই বিক্রি হচ্ছে না।
: কী আশ্চর্য! আমি নিজেই দেখেছি বিক্রি হতে। আমি যেদিন কিনি সেদিন আমার কপিটাই ছিল শেষ কপি। বাঁধাইখানায় বই রেডি আছে, একজন নিয়ে আসছে সে কথাও শুনলাম।
: এতো আপনার কথা। প্রকাশক তা বলছেন না। মজার কথা কী জানেন, আমার বই বিক্রি হচ্ছে না অথচ নতুন পাণ্ডুলিপি দিতে বলছে।
: তাহলে বোঝেন! ভেতরে ভেতরে কী ঘটছে। একটা কবিতার কথা বলি, নব্বইয়ের একজন গল্পকার সেই কবিতা লিখেছেন, খাসিয়া রমনি চা পাতা ছিঁড়ে নিয়ে আসে আর বাগানের মালিক প্রেমিকার জন্য কিনে আনে হীরের আংটি। তেমনি লেখকরা লেখেন তাঁদের মেধা মনন আর অভিগগতা দিয়ে। প্রকাশকরা তা বিক্রি করে নিজের স্বচ্ছলতা বাড়ায়, বোগ বিলাসে মত্ত হয়। মুরগা লেখক নিয়ে একটা নিউজ দেখেছিলাম একটা কাগজে, বেশ মজাদার নিউজ।
: আপনি গ্রামে থেকেও দেখি অনেক খোঁজ খবর রাখেন।
: একটা কথা বলি, এই যে বইমেলায় প্রতি বছর কোটি কোটি টাকা ব্যবসা হয়, তার কতটুকু লেখকরা পায়? একটা বড় রকমের ঘাপলা হয়েই চলেছে। একটা ছিঁচকে চোর, যে পেটের দায়ে চুরি কওে তাকে পুলিশ পাছায় ডান্ডা মেরে জেলে ঢোকায় কিন্তু লেখকের টাকা বছরের পর বছর চুরি হয়ে যাচ্ছে এর কি সমাধান কোনদিন হবে না।
: আসলে প্রকাশকরা যত টাকা বিনিয়োগ করেন সেই তুলনায় টাকা উঠে আসে না। প্রকাশকদের অবস্থাও তো খুব একটা ভাল না।
: এই হলো আসল কথা। লেখক টাকা পাচেছ না, প্রকাশকের পুঁজি তলিয়ে যাচেছ, এদিকে বইমেলায় কোটি কোটি টাকা বিক্রি হচ্ছে, তাহলে লভ্যাংশটা খাচ্ছে কে?
: দেখেন, প্রকাশক, লেখক, বইমেলা, পাঠক, পাঠকের পকেট, শিক্খার হার, রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি – অনেক বড় একটা বিষয়।এসব আলোচনার জন্য অনেক সময় প্রয়োজন।
: ঠিক বলেছেন, তার চেয়ে বরং আমাদেও লেখালেখির লাইনের রোকজন যারা সিনেমা নাটকে ঢুকে নিজেদেও স্টার ভাবছে, বইমেলায় এসে যারা ছবি তোলার জন্য পোজ দিচ্ছে, রঙ বেরঙের হাসি ছড়াচ্ছে, আমরা বরং তাদের ছবি তোলা দেখি।
১৩ মার্চ ২০১২

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here