কর্মসংস্থান : একের ভিতর দুই – রাজা সহিদুল আসলাম

0
118

কর্মসংস্থান : একের ভিতর দুই
নিজের কাজের ভেতর লুকিয়ে আছে আর একটি আয়ের পথ।

রাজা সহিদুল আসলাম

বেকার এবং কর্মজীবী/চাকরিজীবী – উভয়ের জন্য আয়ের সুযোগ।
বেকারদের জন্য এই আইডিয়া সহজ দীর্ঘমেয়াদী কর্মসংস্থানের আইডিয়া। শুধু তাই নয়, যাদের কর্মসংস্থান হয়েছে তারাও আয় করতে পারেন স্বল্প সময় ব্যয়ে এবং স্বল্প পরিশ্রমে। একটি দোকান করলে যেমন সর্বক্ষণ দোকানে থাকতে হয় এই কাজ তেমন নয়। ব্যবসা-চাকরি-সংগঠন করে অবসর সময়ে এই কাজ করা যায়। বেকাররা এখান থেকে পর্যাপ্ত আয় নিয়মিত করার পাশাপাশি অন্য প্রকল্প বা ব্যবসা করতে পারবে। স্বল্প আয়ের মানুষ এবং মাঝারি আয়ের মানুষরাও এই কাজ করে আয় করতে পারেন।
যাদের কর্মসংস্থান হয়েছে, তারা যে কাজটি করেন সেটি এই কাজের মূল পুঁজি হতে পারে।
অর্থাৎ ব্যক্তি তার কাজের ভিডিও ইউটিউবে আপ লোড করে আয়ের পথ তৈরি করবেন।

যাঁরা খুব সহজেই এই আয় করতে পারবেন –
০১. সফল আত্মকর্মী।
০২. বেকার যুব-যুব মহিলা।
০৩. কর্মজীবী নারী।
০৪. পেশাজীবী মানুষ।
০৫. সমাজকর্মী, সাংস্কৃতিক কর্মী, সংগঠক।
০৬. সরকারী চাকরীজীবী এবং
০৭. একজন গৃহিনী।
মোট কথা যে কেউ ইচ্ছা করলেই এই সুযোগ গ্রহণ করতে পারবেন।

কর্মকাল এবং কাজের সুবিধা –
অবসর সময়ে মাসে একদিন কাজ করলেই চলবে। তবে প্রথম অবস্থায় দুই মাস সপ্তাহে একদিন কাজ করলে এগিয়ে থাকা যায়। তবে বেশি কাজ করলে কোনো সমস্যা নেই।

প্রয়োজনীয় ডিভাইস –
০১. ভিডিও ক্যামেরা অথবা এন্ড্রুয়েড মোবাইল ফোন।
০২. ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ।
০৩. মডেম।

সুফল –
০১. কর্মসংস্থান।
০২. আয়-রোজগারের পথ তৈরি।
০৩. নারীর ক্ষমতায়ন।
০৪. পেশাজীবী মানুষের স্বচ্ছলতা বৃদ্ধি।
০৫. ঘরে বসে বিদেশ থেকে ডলার আয়।
০৬. অবসর সময়কে কাজে লাগিয়ে আয় করার সুযোগ।
০৭. রেমিটেন্স
৩/৪ দিনের মধ্যে একটি ভিডিও প্রায় ৭০০০ ভিউ হয়েছে, এটিও দেখতে পারেন –

যেভাবে কাজ করতে হবে – উদাহরণ
০১. জাল টেনে মাছ ধরা বা বড়শি দিয়ে মাছ ধরা।
ধরা যাক একজন ব্যক্তি মাছ চাষ করেন। তার একটি পুকুর রয়েছে। পুকুরে তিনি কিভাবে মাছ ছাষ করছেন তার ভিডিও করলেই চলবে। বিষয় নির্ধারণ করে ছোট ছোট ভিডিও করা ভাল। যেমন – ০১. পুকুরে পোনা ছাড়া।
০২. পুকুরে খাদ্য দেওয়া।
০৩. জাল টেনে মাছ ধরা।
০৪. বড়শি দিয়ে মাছ ধরা। ইত্যাদি। ভিডিও ক্যামেরা না থাকলে মোবাইল ফোন দিয়েও ভিডিও করা যায়। সে ক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে মোবাইল ফোনের ক্যামেরা কমপক্ষে ৮ মেগা পিক্সেল হলে ভাল হয়।
ইউ টিউবে কোটি কোটি দর্শক, তাই দর্শক পেতে সমস্যা হয়না। নিচের ইউআরএলটি/লিংক শুধু জাল টেনে মাছ ধরার ভিডিও। তার ভিউ হয়েছে প্রায় দেড় লক্ষ। এটি সোয়া দুই মিনিটের ভিডিও।

০২. টাইয়ের নট দেয়া।
যদি আপনি টাইয়ের নট দিতে জানেন তাহলে তার একটি ভিডিও আপনি আপলোড করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে অনেক পরিশ্রম বা লাইব্রেরিতে গিয়ে অনেক বই পড়তে হবেনা। নিচের লিংকটি টাই বাঁধার একটি ভিডিও। এটি ভিউ হয়েছে ২,৯৮,৪৯,৯৪৩। প্রায় তিন কোটি। (০৫/১২/২০১৭)।

৩/৪ দিনের মধ্যে একটি ভিডিও প্রায় ৭০০০ ভিউ হয়েছে, এটিও দেখতে পারেন –

০৩. গৃহিনীদের জন্য
আপনি যদি গৃহিনী হন তাহলে রান্নার ভিডিও দিবেন। তারও অনেক দর্শক আছে। অর্থাৎ একজন গৃহিনীও নিত্যদিনের সাংসারিক কাজকর্মকে পুঁজি করে আয় করতে পারেন। যে কেউ রান্নার ভিডিও দিতে পারেন।
মূলত: আয়ের পথ অবারিত। শুধু নিজের চিন্তা ভাবনাকে সুন্দর করে গুছিয়ে নিয়ে উপস্থাপন করা।
শুধু আলুর তরকারী রান্নার ভিউ হয়েছে ১৭,১০,৫১৯ (সতের লক্ষ দশ হাজার পাঁচ শত উনিশ)। ১৬ নভেম্বর ২০১৬ সালে এই ভিডিও আপলোড করা হয়েছে। (০৫/১২/২০১৭)। নিচে সেই ভিডিওর লিংক।

০৪. বেকার যুবদের জন্য
বেকাররা তাদের আয়ত্বের মধ্যে আকর্ষণীয় সব কাজের ভিডিও আপলোড করতে পারবে। কৃষি ভিত্তিক অনেক বিষয় রয়েছে যা ভিডিও করা সম্ভব। ইউরোপ আমেরিকার অনেক মানুষ ধান কাটা, ধান সেদ্ধ করা, ঢেকিতে ধান ভানা, পিঠা তৈরি করা দেখেনি। এছাড়া গ্রামীণ মেলা, উৎসব, বিয়ের গীত, লোকগান অনেক বিষয় আছে যা আমাদের ইতিহাস-ঐতিহ্যকে প্রকাশ করে। এসব দেখতে আগ্রহী অনেক মানুষ রয়েছে। এছাড়া প্রাচীন মসজিদ, মন্দির, স্থাপনা রয়েছে।
বেকারদের জন্য ইউ টিউবে কাজ করার অফুরন্ত সুযোগ রয়েছে। অনেক বিষয়, মজার, আনন্দের, গুরুত্বপূর্ণ সব বিষয় আমাদের চার পাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রয়েছে। চোখ মেলে তাকালেই হয়। গ্রাম গনজে কিছু মানুষ আছেন গাছের পাতা দিয়ে বাঁশি বাজাতে পারেন। এক মিনিটের একটা ভিডিও লক্ষ লক্ষ ভিউ হয়ে যেতে পারে। অনেকে কৌতুক বলতে পারেন। সেটিও গুরুত্বপূর্ণ।
৩/৪ দিনের মধ্যে একটি ভিডিও প্রায় ৭০০০ ভিউ হয়েছে, এটিও দেখতে পারেন –

প্রসঙ্গ ইউ টিউব –
ভিডিও আপলোডের জন্য ইউটিউবে একটি চ্যানেল খুলতে হবে। ১৫ মিনিটের মধ্যে চ্যানেল খোলা সম্ভব। এ জন্য একটি ইমেইল আইডি লাগবে। এই ইমেইল আর অন্য কোথাও ব্যবহার না করাই ভাল।
একটি মডেম দিয়ে বা একটি আইপি এড্রেস থেকে একটির বেশি চ্যানেল না খোলাই ভাল। তবে সাব চ্যানেল খোলা যাবে।

বিজ্ঞাপন
মূলত: আয় হবে বিজ্ঞাপন থেকে। চ্যানেলের ওয়াচ টাইম ৪ হাজার ঘণ্টা এবং ১০০০ হাজার সাবসক্রাইবার হলে বিজ্ঞাপন অনুমোদন হবে। বিজ্ঞাপন ভিডিওর শুরু এবং শেষে রাখা ভাল। মাঝামাঝিতে বিজ্ঞাপন রাখলে ভিউয়ার বিরক্ত হতে পারেন। সেই সঙ্গে স্কিপ বিজ্ঞাপন রাখা ভাল।

পেমেন্ট
পেমেন্ট পাওয়ার জন্য ব্যংক একাউন্ট থাকতে হবে। যে সব ব্যংক আন্তর্জাতিক লেনদেন করে থাকে সেই ব্যংকে একাউন্ট করতে হবে। তবে সম্প্রতি পেপালের সঙ্গে সোনালী ব্যংকের চুক্তি হয়েছে। সেখানে করা যেতে পারে।
‘ভিউ’ গুরুত্বপূর্ণ
ভিডিও যত বেশি ভিউ হবে তত বেশি আয় হবে। ভিডিও ভিউ হওয়া মানে বিজ্ঞাপন ভিউ হওয়া। তাই ভিউয়ার বৃদ্ধির জন্য গুরুত্বপূর্ণ স্যোসাল সাইটে শেয়ার করতে হবে।
ভিডিও শেয়ার বা URL শেয়ার করার জন্য স্যোসাল সাইটে একাউন্ট খুলতে হবে বা রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

যা যা করা যাবেনা –
০১. কপি রাইট ধরা না পড়ে এই রকম ভিডিও দিতে হবে।
০২. ব্লাক SEO করা যাবেনা।

সভ্যতা যতদিন থাকবে এই আয়ের পথ ততদিন খোলা থাকবে। তাই পরবর্তী প্রজন্মও এর ফল ভোগ করতে পারবে।
দেখতে পারেন এই সব ভিডিও –








(সংক্ষিপ্ত আকারে উপস্থাপন করা হলো)।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here